পল্লবীতে ছাদ থেকে লাফিয়ে তরুণীর ‘আ’ত্ম’হত্যা’

মিরপুরে বাসার ছাদ থেকে পড়ে আফরোজা আক্তার মিমি নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ ও ভ্রুণ হত্যা করা হয়। পরিবারের দাবি, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়েই আত্মত্যার পথ বেছে নিয়েছেন তিনি। রোববার (২০ আগস্ট) দুপুরে মিরপুর ডিওএইচএসের বাসার ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়েন মিমি।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। চলচ্চিত্র জগতে তারকা হওয়ার স্বপ্ন ছিল নিহত আফরোজা আক্তার মিমির। পরিবারের অভিযোগ, সেই দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে নানা সময়ে মিমির ওপর নির্যাতন চালাতো একটি চক্র।

এ নিয়ে মামলাও হয় পল্লবী থানায়। এর ভিত্তিতে মূল অভিযুক্ত গ্রেফতারও হয়েছিল বলে জানান নিহতের বাবা মো. আফসার উদ্দিন। নিহতের ভাই মোঃ আবিদ উদ্দিন জানান, তার বোনকে নায়িকা বানানোর কথা বলে নানা সময় সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করতেন একজন পরিচালক।

পরবর্তীতে তারা বিবাহিত পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেন। এরপর মিমিকে নানাভাবে নির্যাতন করা হয়। তার বোন সন্তানসম্ভবা হলে জোর করে ভ্রুণহত্যা করানো হয়। বিষয়টি জানার পর তারা উক্ত পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পল্লবী থানার ওসি মো. মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, ময়না তদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ নেয়া হয়েছে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে। এ ঘটনায় পরিবার থেকে কোনো লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *