আবেগ দিয়ে জীবন চলে না, স্বপ্ন পূরণে অনেক টাকার প্রয়োজন

ফরিদপুরের বোয়ালমারী থেকে একাদশ শ্রেণির ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার গুনবহা ইউনিয়নের চাপলডাঙ্গা গ্রাম থেকে ওই মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।ওই কলেজছাত্রের নাম ফিরোজ মোল্যা (১৮)। তিনি ২০২২ সালে বোয়ালমারী জর্জ একাডেমি থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ফিরোজ বোয়ালমারী সরকারি কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

জানা গেছে, ফিরোজের বাবা তাদের ছোট বেলোয় নিরুদ্দেশ হয়। এরপর তার মা ফিরোজা বেগম উপজেলার গুনবহা ইউনিয়নের চাপলডাঙ্গায় তার বাবার বাড়িতে সন্তানদের রেখে অন্যত্র বিয়ে করে চলে যান। নানার বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করতেন দুই ভাই ফিরোজ ও ফাহিম (১২)। নানা-নানির মৃত্যুর পর প্রতিবন্ধী মামাকে নিয়ে ফিরোজ ও তার ভাই ফাহিম নানা বাড়িতেই থাকতেন। ফিরোজ পড়ালেখার পাশাপাশি একটি বেসরকারি ক্লিনিকে দন্ত চিকিৎসকের সহযোগী ও কখনো নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতেন।

বুধবার বিকেলে ফিরোজ নানা বাড়ির পাশের মসজিদে আছরের নামাজ আদায় করেন। সেখান থেকে ফিরে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন তিনি। এরপর পরিবারের সদস্য ঘরের দরজা ভেঙ্গে আড়ার সঙ্গে কাপড় পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়া ফিরোজের মরদেহ দেখতে পান। এ সময় তাকে উদ্ধার করে দ্রুত বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ফিরোজের বসতঘর থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে তিনি লেখেন, ‌‘আমি জানি আমি কি করছি। জানি আবেগ দিয়ে জীবন চলে না। কিন্তু, আমার কাছে যে আমার স্বপ্নগুলো অনেক দামী ছিল। হয়তো আমার জীবনের চেয়েও দামী। আমরা যেই সমাজে বসবাস করি সেই সমাজে স্বপ্ন পূরণ করতে অনেক টাকা নয়তো মা-বাবা থাকা প্রয়োজন। যার কোনোটাই আমার কাছে নেই। আমি ওকে ভালোবাসতাম।

আমার আবেগ মাখা কথাগুলো কারো বিবেকে লাগবে না, সেটা আমি জানি। আর আমি বোকা বলবো সেই সব মানুষদের যারা আমাকে একজন ভালো ছেলে ভাবতেন। আমি আসলে কখনোই ভালো ছিলাম না, শুধু ভালো থাকার অভিনয় করতাম। জীবনে অনেক কষ্ট করেছি। আর কোনো কষ্ট করতে ও পেতে চাই না। তাই এই পথ বেছে নিলাম। আমাকে সবাই ঘৃণা করলেও যেন ভুলে যায়, এটাই আমার শেষ ইচ্ছা, চির বিদায় সবাইকে। আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়।’

বোয়ালমারী থানার উপ-পরিদর্শক মো. সারোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, বুধবার রাতে হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *